1. chalanbeel.probaho@gmail.com : News :
  2. khokanhaque.du@gmail.com : khokan :
বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৫:৪৪ অপরাহ্ন

বড়াইগ্রামে শতবর্ষী বিদ্যালয়ের নাম পুনর্বহালের দাবিতে মানববন্ধন

বড়াইগ্রাম (নাটোর) প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ২২ মে, ২০২৪
  • ১৯৬ বার পঠিত

বড়াইগ্রামে শতাধিক বছর পূর্বে প্রতিষ্ঠিত ঐতিহ্যবাহী খাকসা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনের প্রতিবাদে এবং আগের নাম পুনর্বহালের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার বিদ্যালয়ের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে শত শত বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী অংশ নেন।

মানববন্ধনে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি, প্রভাষক ও প্রাক্তন শিক্ষার্থী আসাদুল ইসলাম ঝন্টু, ইউপি সদস্য ওয়ারছেল আলী, সাবেক ইউপি সদস্য সাদেক আলী, প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও মাধ্যমিক স্কুল শিক্ষক ইজাদুল হক সরকার, সমাজসেবক মানিক উল্লাহ কালু, জান মোহাম্মদ ও রেজাউল করিম লিটন, ছাত্রলীগ নেতা মোনায়েম হোসেন মিলন, কলেজ ছাত্রী মলি খাতুন ও ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী মুফলিহা সিদ্দিকা বক্তব্য রাখেন।

মানববন্ধনের সাথে সংহতি প্রকাশ করেছেন অত্র বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী ভরতপুর গ্রামের কৃতি সন্তান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের প্রাক্তন ডীন ও আইন বিভাগের প্রাক্তন চেয়াম্যান প্রফেসর ড. সরকার আলী আক্কাস, বাগডোব গ্রামের সন্তান ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গীত বিভাগের প্রফেসর ড. কৃষ্ণপদ মন্ডল ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত উপপরিচালক ডা. আনন্দ মোহন মন্ডল, রোলভা গ্রামের সন্তান ইঞ্জিনিয়ার মোঃ সানোয়ার হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার মোঃ মোজাম্মেল হকসহ আরো অনেক প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা।

মানববন্ধন কালে বক্তারা বলেন, নেতিবাচক ভাবার্থ থাকা ও শ্রুতিকটু আখ্যা দিয়ে খাকসা নাম পরিবর্তন করা হয়েছে। অথচ খাকসা কয়েকশ’ বছরের পুরনো একটি গ্রামের নাম, এটি কোনভাবেই শ্রুতিকটু নয়। মন্ত্রণালয় থেকে মতামত চাইলে পরিচালনা কমিটি ১৯১৯ সালে প্রতিষ্ঠিত এই বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন না করার জন্য লিখিতভাবে শিক্ষা কর্মকর্তাকে জানান। কিন্তু তারপরও বিদ্যালয়ের নাম বনলতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় করা হয়েছে। যা এলাকার লোকজন মেনে নিচ্ছে না। আমরা অবিলম্বে খাকসা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নামটি পুনর্বহালের দাবি জানাচ্ছি।

এসএমসির সভাপতি ঝন্টু বলেন, আমরা ৩ ডিসেম্বর ২০২৩ মিটিং করে রেজুল্যুশনের কপিসহ নাম পরিবর্তন না করতে উপজেলা শিক্ষা অফিসার বরাবর চিঠি দিয়ে জানিয়েছি। কিন্তু তারপরেও আমাদের সিদ্ধান্তকে আমলে না নিয়ে এককভাবে গত ৩ এপ্রিল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রজ্ঞাপন দিয়ে বিদ্যালয়টির নাম বনলতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় করা হয়। যা অত্র এলাকার মানুষ কোনভাবেই মেনে নিতে পারছে না এবং মানবে না। তাই অনতিবিলম্বে খাকসা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নামটি পুনর্বহাল রাখার জন্য জোড় দাবি জানাচ্ছি।

ওয়ারছেল আকন্দ বলেন, প্রাচীন এই বিদ্যাপীঠের নাম গ্রামের নামে নামকরণ করা হয়। খাকসা নামটি কোন ভাবেই শ্রুতিকটু ও নেতিবাচক নয় । এই নাম শুনে কেউ মুখ ভেংচিয়ে হাসে না বা কেউ পরিচয় দিতেও সংকোচবোধ করে না। তাই এটি কোনোভাবেই পরিবর্তন করার প্রয়োজন পড়ে না।

ইজাদুল সরকার বলেন, যেখানে সারা দেশে মাত্র ২৪৭ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন করা হয়েছে সেখানে শুধু নাটোর জেলাতেই এককভাবে ৫১ টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন অস্বাভাবিক। তাছাড়া আমরা তো নাম পরিবর্তন চাইই নি। তাহলে কেন স্বপ্রণোদিত হয়ে কেন নাম পরিবর্তন করা হলো?

এ ব্যাপারে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন, আমরা শুধুমাত্র দুটি স্কুলের নাম পরিবর্তনের জন্য সুপারিশ করেছিলাম। কিন্তু অন্য স্কুলগুলোর নাম কিভাবে পরিবর্তন হলো তা আমার জানা নাই।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..

সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত